বিকাল ৪:৪৭ | বুধবার | ৮ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

উপজেলা নির্বাচন ॥ শেরপুরে লড়ছেন ৩ ভিপি-জিএস

মইনুল হোসেন প্লাবন, সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার ॥ পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ ধাপে অনুষ্ঠেয় শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এবার ভোটের মাঠে লড়ছেন ছাত্র জীবনের ৩ ভিপি-জিএস। তারা হচ্ছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মিনহাজ উদ্দিন মিনাল ও যুবলীগ নেতা, পদত্যাগী উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান বায়েযীদ হাছান এবং ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ মনোয়ারুল ইসলাম। তাদের মধ্যে মিনহাজ উদ্দিন মিনাল ছিলেন শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক (জিএস) এবং মোহাম্মদ মনোয়ারুল ইসলাম ও বায়েযীদ হাছান ছিলেন ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত সহ-সভাপতি (ভিপি)।
জানা যায়, শেরপুর সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের সন্তান মিনহাজ উদ্দিন মিনাল ১৯৯০-৯১ মেয়াদে শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের দ্বাদশ সংসদে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে জিএস নির্বাচিত হয়েছিলেন। ওই সংসদের ভিপি ছিলেন ছাত্রদলের প্যানেলে নির্বাচিত বর্তমানে বিএনপি নেতা এসএম শহীদুল ইসলাম। ছাত্র রাজনীতির সুবাদে একসময় মিনাল জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং পরবর্তীতে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে সহ-সভাপতি হিসেবে রয়েছেন। এছাড়া তিনি নিজ এলাকা লছমনপুর ইউনিয়নে দু’দফায় ছিলেন চেয়ারম্যান। গতবারও ওই নির্বাচনে অংশ নিলেও হেরে যান দলের এক তরুণ বিদ্রোহী প্রার্থীর কাছে। তিনি এলাকায় পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত করেছেন জমশেদ আলী মেমোরিয়াল (ডিগ্রী) কলেজ। গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হলেও পরবর্তীতে প্রার্থিতা থেকে সরে দাঁড়ান দলের প্রার্থীর সমর্থনে। এবারও দলীয় মনোনয়ন না জুটায় বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে লড়ছেন চেয়ারম্যান পদে। এ নেতার ব্যক্তিগত-রাজনৈতিক পরিচিতি ও ইমেজ থাকলেও সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় একই এলাকায় বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রতিদ্বন্দ্বী ২ প্রার্থী থাকায়। তারপরও তিনি লড়ছেন নিজের মতো করে।
চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে লড়ছেন শহরের মীরগঞ্জ এলাকার সন্তান বায়েযীদ হাছান। তিনি ১৯৯৯-২০০০ মেয়াদে পঞ্চদশ ও সর্বশেষ শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদে ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত ভিপি ছিলেন। ওই সংসদে একই প্যানেল থেকে নির্বাচিত জিএস ছিলেন শফিকুল ইসলাম লিপটন। পরবর্তীতে বায়েযীদ হাছান যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও নানা ঘাত-প্রতিঘাতের কারণে যোগ্যতা ও অবস্থান অনুযায়ী তার পদায়ন হয়নি। এরপর তৃতীয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস-চেয়ারম্যান পদে অংশ নিতে দলের তৃণমূলে লড়াই করে স্বল্প ভোটে হেরে যান। চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনে দলীয় সমর্থন নিয়েই ভাইস-চেয়ারম্যান পদে অংশ নিয়ে বিপুল ভোটাধিক্যে নির্বাচিত হন। এবার তিনি চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে।
এছাড়া ভাইস-চেয়ারম্যান পদে দলীয় সমর্থন নিয়ে লড়ছেন সদর উপজেলার চরমুচারিয়া ইউনিয়নের সন্তান মোহাম্মদ মনোয়ারুল ইসলাম। তিনি ১৯৯৭-৯৮ মেয়াদে চতুর্দশ শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদে ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত ভিপি ছিলেন। ওই পরিষদে ছাত্রদলের প্যানেলে নির্বাচিত জিএস ছিলেন আমিনুল ইসলাম শিপন। পরবর্তীতে মনোয়ার হোসেন ছাত্রলীগ ও যুবলীগের রাজনীতিতে জড়িত থাকলেও বিশেষ কোন পদ-পদবীতে তাকে দেখা যায়নি। তবে বর্তমান সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী পরিষদের তিনি সম্পাদকমণ্ডলীতে রয়েছেন। এবার তিনি উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» প্রয়োজনে সীমিত আকারে ভার্চুয়াল আদালত পরিচালনা, সংসদে বিল পাস

» ৮৫টি শূন্যপদে নিয়োগ দেবে বিআইডব্লিউটিএ

» ভাঙছে এফডিসি, প্রস্তুত কবিরপুরের ফিল্ম সিটি

» করোনা সংকটে দৃঢ় মনোবল নিয়ে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে: কাদের

» দেশে করোনায় আরও ৪৬ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৪৮৯

» ইউটিউবে পছন্দের তালিকার শীর্ষে সুশান্তের ছবির ট্রেলার

» মানবপাচারের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে : শেখ হাসিনা

» বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত প্রায় ১ কোটি ১৮ লাখ, মৃত্যু ছাড়াল ৫ লাখ ৪৩ হাজার

» ৪ মাস পর মাঠে ফিরছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

» ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্রের দায়িত্ব পেলেন আমু

» চীনে শিক্ষার্থীবাহী বাস ডুবে ২১ জনের মৃত্যু

» শেরপুরে বৃক্ষরোপণ ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ করলেন হুইপ আতিক

» শেরপুরে করোনা পরিস্থিতিতে মাস্ক বিতরণ করছেন ছাত্রলীগ নেতা

» শেরপুরে এবার তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠির বাসা ভাড়ার টাকা দিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

» করোনা প্রতিরোধে করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভা ও কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  বিকাল ৪:৪৭ | বুধবার | ৮ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

উপজেলা নির্বাচন ॥ শেরপুরে লড়ছেন ৩ ভিপি-জিএস

মইনুল হোসেন প্লাবন, সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার ॥ পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ ধাপে অনুষ্ঠেয় শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এবার ভোটের মাঠে লড়ছেন ছাত্র জীবনের ৩ ভিপি-জিএস। তারা হচ্ছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মিনহাজ উদ্দিন মিনাল ও যুবলীগ নেতা, পদত্যাগী উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান বায়েযীদ হাছান এবং ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ মনোয়ারুল ইসলাম। তাদের মধ্যে মিনহাজ উদ্দিন মিনাল ছিলেন শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক (জিএস) এবং মোহাম্মদ মনোয়ারুল ইসলাম ও বায়েযীদ হাছান ছিলেন ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত সহ-সভাপতি (ভিপি)।
জানা যায়, শেরপুর সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের সন্তান মিনহাজ উদ্দিন মিনাল ১৯৯০-৯১ মেয়াদে শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের দ্বাদশ সংসদে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে জিএস নির্বাচিত হয়েছিলেন। ওই সংসদের ভিপি ছিলেন ছাত্রদলের প্যানেলে নির্বাচিত বর্তমানে বিএনপি নেতা এসএম শহীদুল ইসলাম। ছাত্র রাজনীতির সুবাদে একসময় মিনাল জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং পরবর্তীতে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে সহ-সভাপতি হিসেবে রয়েছেন। এছাড়া তিনি নিজ এলাকা লছমনপুর ইউনিয়নে দু’দফায় ছিলেন চেয়ারম্যান। গতবারও ওই নির্বাচনে অংশ নিলেও হেরে যান দলের এক তরুণ বিদ্রোহী প্রার্থীর কাছে। তিনি এলাকায় পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত করেছেন জমশেদ আলী মেমোরিয়াল (ডিগ্রী) কলেজ। গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হলেও পরবর্তীতে প্রার্থিতা থেকে সরে দাঁড়ান দলের প্রার্থীর সমর্থনে। এবারও দলীয় মনোনয়ন না জুটায় বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে লড়ছেন চেয়ারম্যান পদে। এ নেতার ব্যক্তিগত-রাজনৈতিক পরিচিতি ও ইমেজ থাকলেও সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় একই এলাকায় বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রতিদ্বন্দ্বী ২ প্রার্থী থাকায়। তারপরও তিনি লড়ছেন নিজের মতো করে।
চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে লড়ছেন শহরের মীরগঞ্জ এলাকার সন্তান বায়েযীদ হাছান। তিনি ১৯৯৯-২০০০ মেয়াদে পঞ্চদশ ও সর্বশেষ শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদে ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত ভিপি ছিলেন। ওই সংসদে একই প্যানেল থেকে নির্বাচিত জিএস ছিলেন শফিকুল ইসলাম লিপটন। পরবর্তীতে বায়েযীদ হাছান যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও নানা ঘাত-প্রতিঘাতের কারণে যোগ্যতা ও অবস্থান অনুযায়ী তার পদায়ন হয়নি। এরপর তৃতীয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস-চেয়ারম্যান পদে অংশ নিতে দলের তৃণমূলে লড়াই করে স্বল্প ভোটে হেরে যান। চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনে দলীয় সমর্থন নিয়েই ভাইস-চেয়ারম্যান পদে অংশ নিয়ে বিপুল ভোটাধিক্যে নির্বাচিত হন। এবার তিনি চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে।
এছাড়া ভাইস-চেয়ারম্যান পদে দলীয় সমর্থন নিয়ে লড়ছেন সদর উপজেলার চরমুচারিয়া ইউনিয়নের সন্তান মোহাম্মদ মনোয়ারুল ইসলাম। তিনি ১৯৯৭-৯৮ মেয়াদে চতুর্দশ শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদে ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিত ভিপি ছিলেন। ওই পরিষদে ছাত্রদলের প্যানেলে নির্বাচিত জিএস ছিলেন আমিনুল ইসলাম শিপন। পরবর্তীতে মনোয়ার হোসেন ছাত্রলীগ ও যুবলীগের রাজনীতিতে জড়িত থাকলেও বিশেষ কোন পদ-পদবীতে তাকে দেখা যায়নি। তবে বর্তমান সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী পরিষদের তিনি সম্পাদকমণ্ডলীতে রয়েছেন। এবার তিনি উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!