বিকাল ৫:১০ | শনিবার | ৪ঠা এপ্রিল, ২০২০ ইং | ২১শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

উকুন দূর করার ৭ টি টিপস

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : চুলের যন্ত্রণাদায়ক একটি সমস্যা হলো উকুন। বড়দের চুলের পাশাপাশি বাচ্চাদের চুলেও উকুন দেখা যায়। বরং বড়দের তুলনায় ছোটদের মাথায় বেশি উকুন হতে দেখা যায়। আমেরিকায় ১২ জন শিশুর মধ্যে ৬ জন্য শিশু উকুনে আক্রান্ত হয়। উকুন একটি পরজীবী প্রাণী যা মানুষের মাথার ত্বকে বসবাস করে। সাধারণত মাথা অপরিষ্কার থাকলে, ভেজা চুল বাধাঁর কারণে, ভেজা চুল অনেকক্ষণ বাঁধা থাকলে, অন্যের চিরুনি, টাওয়েল, গামছা ব্যবহার করলে ইত্যাদি কারণে চুলে উকুন হতে পারে। এই বিরক্তিকর সমস্যা ঘরোয়া কিছু উপায়ে দূর করা সম্ভব। আসুন জেনে নেওয়া যাক সেই উপায়গুলো।

img-add

১. নিট কম্ব ব্যবহার :
সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে নিট কম্ব (উকুনের ডিম পরিষ্কারের জন্য চিরুনি) ব্যবহার করা। এই চিরুনি নিউমার্কেটসহ যেকোনো দোকানেই পাওয়ার কথা। চুলগুলোকে ছোট ছোট অংশে ভাগ করে প্রথম ১ সপ্তাহ দিনে ৩ বার করে চুল আঁচড়াবেন। ১ সপ্তাহ পরে শুধু রাতে আঁচড়াবেন। ফলে উকুনের ডিম এবং একদম নতুন যে উকুন রয়েছে মাথায় সেগুলো দূর হয়ে যাবে। নিট কম্ব ব্যবহার করার পরে তা অবশ্যই ১০/১৫ মিনিট চুলায় রাখা গরম ফুটন্ত পানিতে রাখতে হবে আর নাহলে ৩০ মিনিট ভিনেগারে ডুবিয়ে রাখতে হবে।

২. চুলে কন্ডিশনার লাগান :

চুল ভালো মতো আঁচড়ে নিন। এরপর কন্ডিশনার দিন চুলে। কিছুক্ষণ চুলে এভাবে কন্ডিশনার রেখে দিন। যেহেতু কন্ডিশনার খুব পিচ্ছিল, তাই বড় উকুনগুলোর চুলের সাথে আটকে থাকা বা চলা ফেরা করা খুবই সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। এবার নিট কম্ব দিয়ে আঁচড়ে নিলে উকুন আর চুলের সাথে লেগে থাকতে পারবে না।

৩. রসুন ও লেবুর প্যাক :

১০/১২ টি রসুনের কোয়া পেস্ট করে নিন। সাথে ২/৩ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এবার ১০ পেস্ট-টি মাথার ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। চুলে লাগানোর দরকার নেই। এরপর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে কয়েকদিন করতে হবে।

৫. অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহার করুন :

শ্যাম্পু করার আগে একবার আর শ্যাম্পু করার পরে আরেকবার অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার দিয়ে পুরো চুল ভিজিয়ে নিন অথবা চুল ভিনেগার দিয়ে ভালোভাবে ভিজিয়ে ৩/৪ মিনিট রেখে দিন। এইটুকু সময় শুকনো তোয়ালে দিয়ে চুল আলতোভাবে মাথার উপর উচু করে বেঁধে রাখবেন। ৩/৪ মিনিট পর নিট কম্ব দিয়ে আঁচড়ে নিন।

৬. ওভার নাইট ট্রিটমেন্ট :

রাতে ঘুমোতে যাবার আগে প্রথমে অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার দিয়ে চুল ভালো মতো ভিজিয়ে নিন। তারপর চুলে লাগানো ভিনেগার পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে চুলে নারিকেল তেল দিন। এখন একটি শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন। ৬/৭ ঘণ্টা এভাবেই রেখে দিন সারা রাত। যেহেতু এতক্ষণ রাখতে হবে তাই রাতের কথা বললাম। আপনি চাইলে দিনের বেলাতেও এটা করতে পারেন। ৬/৭ ঘণ্টা পরে নিট কম্ব দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন। চুল শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এক টানা ৫/৬ দিন এই নিয়মটি মেনে চলুন উকুন দূর করার জন্য। পেপার টাওয়েল বা কোনো সাদা বড় কাগজ নিন। পেপার টাওয়েল-এর আরেক নাম কিচেন রোল বা কিচেন পেপারও। আগোরা-তে পেয়ে যাবেন। পেপার টাওয়েল-এর উপর নিট কম্ব দিয়ে চুল কয়েকবার করে আঁচড়াতে থাকুন। উকুনের ডিম এবং উকুন বের হয়ে আসবে।

৬. হেয়ার স্ট্রেইটনার ব্যবহার :
হেয়ার স্ট্রেইটনার যদি-ও চুলের জন্য ভালো না, তারপরেও উকুন মারার জন্য এটি ব্যবহার করতে পারেন সপ্তাহে একবার। এসব ট্রিটমেন্ট চলার পাশাপাশি একটু বেশি তাপসহ হেয়ার স্ট্রেটনার ব্যবহার করলে চুলে আটকে থাকা উকুন এবং উকুনের ডিম নষ্ট হয়ে যাবে। কারণ, উকুন হালকা গরম পরিবেশে টিকে থাকতে পারে, অতিরিক্ত গরমে নয়। এরপর শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলবেন। তবে এ পদ্ধতিটি তাদের জন্য যাদের চুল কম পড়ে আর যাদের চুলের স্বাস্থ্য ভালো।

সতর্কতাঃ

১. বেণী করে রাখুন । চুল অনেক বড় হলে বেণী করে বা খোপা করে যাওয়া ভালো।

২. চিরুনি, বালিশ, তোয়ালে শেয়ার করবেন না। কখনো নিজের চিরুনি, বালিশ, হেয়ার ব্যান্ড, তোয়ালে, কাপড় ছাড়া অন্যেরটা ব্যবহার করবেন না।

৩. বালিশের কাভার ধুয়ে রাখবেন। সপ্তাহে ১ দিন বালিশের কাভার গরম সাবান পানিতে ধুবেন।

৪. কম্ব পরিষ্কার রাখবেন। নিট কম্ব আর সাধারণ চিরুণি সব সময় পরিষ্কার করবেন। ভিনেগারে আধা ঘণ্টা করে চুবিয়ে রাখলে ভালো।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুরে ১০ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ ॥ আরও ৫ জনের নমুনা সংগ্রহ

» জরুরিভিত্তিতে ৮৬০ কোটি টাকা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

» করোনার প্রভাব : বেড়েছে মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার

» করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত সংবাদমাধ্যমকে ১০০ মিলিয়ন ডলার অনুদানের ঘোষণা ফেসবুকের

» ‘প্যারাসাইট’ নিয়ে ঊর্বশীর ‘টুইট চুরি’

» এখন কাঁদা ছোঁড়াছুড়ির সময় নয় : তাপসী

» আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের সিরিজ স্থগিত

» করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫৮ হাজার ছাড়াল

» ১১ এপ্রিল পর্যন্ত গণপরিবহণ বন্ধের সিদ্ধান্ত

» শেরপুরে সামাজিক দূরত্ব না মানায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ২২ হাজার টাকা জরিমানা

» দেশে নতুন আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছে ২ শিশু ॥ আইইডিসিআর

» করোনার এ সময়ে খাবারের তালিকায় যেসব পরিবর্তন আনবেন

» ৮ এপ্রিল কোয়ারেন্টাইন শেষ হবে খালেদা জিয়ার

» ভারতে জন্মনো যমজ শিশুর নাম দেওয়া হলো ‘কোভিড’ ও ‘করোনা’

» জার্মানির সবচেয়ে বড় স্টেডিয়াম এখন করোনা চিকিৎসা কেন্দ্র

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  বিকাল ৫:১০ | শনিবার | ৪ঠা এপ্রিল, ২০২০ ইং | ২১শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

উকুন দূর করার ৭ টি টিপস

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : চুলের যন্ত্রণাদায়ক একটি সমস্যা হলো উকুন। বড়দের চুলের পাশাপাশি বাচ্চাদের চুলেও উকুন দেখা যায়। বরং বড়দের তুলনায় ছোটদের মাথায় বেশি উকুন হতে দেখা যায়। আমেরিকায় ১২ জন শিশুর মধ্যে ৬ জন্য শিশু উকুনে আক্রান্ত হয়। উকুন একটি পরজীবী প্রাণী যা মানুষের মাথার ত্বকে বসবাস করে। সাধারণত মাথা অপরিষ্কার থাকলে, ভেজা চুল বাধাঁর কারণে, ভেজা চুল অনেকক্ষণ বাঁধা থাকলে, অন্যের চিরুনি, টাওয়েল, গামছা ব্যবহার করলে ইত্যাদি কারণে চুলে উকুন হতে পারে। এই বিরক্তিকর সমস্যা ঘরোয়া কিছু উপায়ে দূর করা সম্ভব। আসুন জেনে নেওয়া যাক সেই উপায়গুলো।

img-add

১. নিট কম্ব ব্যবহার :
সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে নিট কম্ব (উকুনের ডিম পরিষ্কারের জন্য চিরুনি) ব্যবহার করা। এই চিরুনি নিউমার্কেটসহ যেকোনো দোকানেই পাওয়ার কথা। চুলগুলোকে ছোট ছোট অংশে ভাগ করে প্রথম ১ সপ্তাহ দিনে ৩ বার করে চুল আঁচড়াবেন। ১ সপ্তাহ পরে শুধু রাতে আঁচড়াবেন। ফলে উকুনের ডিম এবং একদম নতুন যে উকুন রয়েছে মাথায় সেগুলো দূর হয়ে যাবে। নিট কম্ব ব্যবহার করার পরে তা অবশ্যই ১০/১৫ মিনিট চুলায় রাখা গরম ফুটন্ত পানিতে রাখতে হবে আর নাহলে ৩০ মিনিট ভিনেগারে ডুবিয়ে রাখতে হবে।

২. চুলে কন্ডিশনার লাগান :

চুল ভালো মতো আঁচড়ে নিন। এরপর কন্ডিশনার দিন চুলে। কিছুক্ষণ চুলে এভাবে কন্ডিশনার রেখে দিন। যেহেতু কন্ডিশনার খুব পিচ্ছিল, তাই বড় উকুনগুলোর চুলের সাথে আটকে থাকা বা চলা ফেরা করা খুবই সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। এবার নিট কম্ব দিয়ে আঁচড়ে নিলে উকুন আর চুলের সাথে লেগে থাকতে পারবে না।

৩. রসুন ও লেবুর প্যাক :

১০/১২ টি রসুনের কোয়া পেস্ট করে নিন। সাথে ২/৩ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এবার ১০ পেস্ট-টি মাথার ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। চুলে লাগানোর দরকার নেই। এরপর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে কয়েকদিন করতে হবে।

৫. অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহার করুন :

শ্যাম্পু করার আগে একবার আর শ্যাম্পু করার পরে আরেকবার অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার দিয়ে পুরো চুল ভিজিয়ে নিন অথবা চুল ভিনেগার দিয়ে ভালোভাবে ভিজিয়ে ৩/৪ মিনিট রেখে দিন। এইটুকু সময় শুকনো তোয়ালে দিয়ে চুল আলতোভাবে মাথার উপর উচু করে বেঁধে রাখবেন। ৩/৪ মিনিট পর নিট কম্ব দিয়ে আঁচড়ে নিন।

৬. ওভার নাইট ট্রিটমেন্ট :

রাতে ঘুমোতে যাবার আগে প্রথমে অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার দিয়ে চুল ভালো মতো ভিজিয়ে নিন। তারপর চুলে লাগানো ভিনেগার পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে চুলে নারিকেল তেল দিন। এখন একটি শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন। ৬/৭ ঘণ্টা এভাবেই রেখে দিন সারা রাত। যেহেতু এতক্ষণ রাখতে হবে তাই রাতের কথা বললাম। আপনি চাইলে দিনের বেলাতেও এটা করতে পারেন। ৬/৭ ঘণ্টা পরে নিট কম্ব দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন। চুল শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এক টানা ৫/৬ দিন এই নিয়মটি মেনে চলুন উকুন দূর করার জন্য। পেপার টাওয়েল বা কোনো সাদা বড় কাগজ নিন। পেপার টাওয়েল-এর আরেক নাম কিচেন রোল বা কিচেন পেপারও। আগোরা-তে পেয়ে যাবেন। পেপার টাওয়েল-এর উপর নিট কম্ব দিয়ে চুল কয়েকবার করে আঁচড়াতে থাকুন। উকুনের ডিম এবং উকুন বের হয়ে আসবে।

৬. হেয়ার স্ট্রেইটনার ব্যবহার :
হেয়ার স্ট্রেইটনার যদি-ও চুলের জন্য ভালো না, তারপরেও উকুন মারার জন্য এটি ব্যবহার করতে পারেন সপ্তাহে একবার। এসব ট্রিটমেন্ট চলার পাশাপাশি একটু বেশি তাপসহ হেয়ার স্ট্রেটনার ব্যবহার করলে চুলে আটকে থাকা উকুন এবং উকুনের ডিম নষ্ট হয়ে যাবে। কারণ, উকুন হালকা গরম পরিবেশে টিকে থাকতে পারে, অতিরিক্ত গরমে নয়। এরপর শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলবেন। তবে এ পদ্ধতিটি তাদের জন্য যাদের চুল কম পড়ে আর যাদের চুলের স্বাস্থ্য ভালো।

সতর্কতাঃ

১. বেণী করে রাখুন । চুল অনেক বড় হলে বেণী করে বা খোপা করে যাওয়া ভালো।

২. চিরুনি, বালিশ, তোয়ালে শেয়ার করবেন না। কখনো নিজের চিরুনি, বালিশ, হেয়ার ব্যান্ড, তোয়ালে, কাপড় ছাড়া অন্যেরটা ব্যবহার করবেন না।

৩. বালিশের কাভার ধুয়ে রাখবেন। সপ্তাহে ১ দিন বালিশের কাভার গরম সাবান পানিতে ধুবেন।

৪. কম্ব পরিষ্কার রাখবেন। নিট কম্ব আর সাধারণ চিরুণি সব সময় পরিষ্কার করবেন। ভিনেগারে আধা ঘণ্টা করে চুবিয়ে রাখলে ভালো।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!