প্রকাশকাল: 22 জুলাই, 2017

ইউএনওর বিরুদ্ধে মামলাকারী সাজু আ’ লীগ থেকে বহিষ্কার

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : বরগুনার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গাজী তারিক সালমানের বিরুদ্ধে মামলাকারী বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহ সাজুকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তাকে কেন স্থায়ীভাবে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে না- এই মর্মে জানতে চেয়ে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হবে। এই নোটিশের সন্তোষজনক জবাব দিতে ব্যর্থ হলে তাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ।
শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার/ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দল ও মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ইউএনও গাজী তারিক সালমান নির্দোষ। তিনি বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস চর্চায় শিশুদের উৎসাহিত করতে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছেন। সেই প্রতিযোগিতার বিজয়ী একটি শিশুর আঁকা বঙ্গবন্ধুর ছবি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে ছাপিয়েছেন। তিনি বরং ভালো ছবিই ব্যবহার করেছেন। অথচ অতি উৎসাহী হয়ে ইউএনওর বিরুদ্ধে বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহ সাজু মামলা করেছেন। আওয়ামী লীগ ইউএনওর পক্ষে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, এর মধ্য দিয়ে দলের ওই নেতা দলের শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ড করেছেন। দলের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করেছেন। এ কারণে দলীয় গঠনতন্ত্রের ৪৭ (ক) ধারা অনুযায়ী তাকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।
তারিক সালমান বরিশালের আগৈলঝাড়ার ইউএনও থাকাকালে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করে ছাপিয়েছিলেন অভিযোগ করে ৭ জুন মামলা করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সাজু। ওই মামলায় গত বুধবার আদালতে হাজির হলে তারিক সালমানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বরিশাল মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মো. আলী হোসাইন। আদালতের এই আদেশকে নজিরবিহীন বলছে প্রশাসনিক ক্যাডারের কর্মকর্তাদের সংগঠন ‘অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন’। ইউএনওকে হাতকড়া পরিয়ে আদালত থেকে নিয়ে যাওয়ার ছবি প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে। ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। একজন ইউএনওর বিরুদ্ধে সরকারের অনুমতি ছাড়াই মামলা এবং তাকে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বিস্ময় প্রকাশ করেন। বুধবার বিকেলেই জামিনে মুক্তি পান তারিক সালমন।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!