দুপুর ১২:৪৯ | সোমবার | ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

অর্ধেকের বেশী দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতু

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : পদ্মা সেতুর ২১তম ¯প্যান স্থাপন হয়েছে। ১৪ জানুয়ারি মঙ্গলবার বিকেল ৩টা ৩ মিনিটের সময় ওই স্প্যান বসানো সম্পন্ন হয়। এর ফলে পদ্মাসেতু অর্ধেকের বেশী ৩১৫০ মিটার দৃশ্যমান হলো। বছরের প্রথম স্প্যান খুঁটিতে বসানোর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতু আরেক ধাপ এগিয়ে গেলো। ৬.১৫ মিটার দীর্ঘ এই মূল সেতুতে আর ২০টি স্প্যান বসানো বাকী। চলতি মাসে সেতুর আরও দু’টি স্প্যান উঠার কথা রয়েছে। সেতু বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের জানিয়েছেন, প্রতি সাসে এখন সেতুর তিনটি করে স্প্যান বসবে। এতে আগামী জুলাই মাসেই সব অর্থ্যাৎ ৪১টি স্প্যান বসানো সম্ভব হবে।
স্থায়ীভাবে সেতুতে ২১ স্প্যান বসেছে। তবে অস্থায়ী ভাবে আরও একটি অর্থ্যাৎ সেতুতে এখন ২২টি স্প্যান দৃশ্যমান। ‘৫এফ’ নম্বরের স্প্যানটি এখন অস্থায়ীভাবে সেতুর ১২ ও ১৩ নম্বর খুঁটিতে রাখা আছে। এটি সরিয়ে নেয়া হবে ৩০ ও ৩১ নম্বর খুঁটিতে। রেলওয়ে এবং রোডওয়ে স্লাব বসানোর সুবিধার্থে এটি সেখানে যথাস্থানে বসানো হয়নি। তবে শিঘ্রই এটিও ৩০ ও ৩১ নম্বর খুঁটিতে বসানো হবে।
পৌষের কনকনে শীতে পদ্মা ছিল কুয়াশাচ্ছন্ন। আবহাওয়াজনিত কারণে কিছুটা বিলম্ব হলেও এরই মধ্যে সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে জাজিরা প্রান্তে সেতুর ৩২ ও ৩৩ নম্বর খুঁটির ওপর ‘৬বি’ নম্বর স্প্যানটি পিলারের উপর বসানো হয়। মঙ্গলবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটের দিকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কুমারভোগ কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ¯প্যানটিকে নিয়ে যায় ‘তিয়ান ই’ ভাসমান ক্রেন। নির্ধারিত পিলারের কাছে পৌছায় সকাল ১১টার দিকে। ২০তম ¯প্যান বসানোর ১৪ দিনের মাথায় বসেছে ২১তম ¯প্যানটি।
পদ্মা সেতুর ৪২ টি খুঁটি (পিয়ার) মধ্যে কাজ শেষ হয়েছে ৩৬টি খুঁটির। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। এছাড়াও ২০ জানুয়ারি ‘১-ই’ নম্বর স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তের ৪ ও ৫ নম্বর খুটিতে এবং ৩০ জানুয়ারি ‘৬-এ’ নম্বর স্প্যানটি সেতুর জাজিরা প্রান্তের ৩১ ও ৩২ নম্বর খুঁটিতে বসানোর কথা রয়েছে।
সেতুর মোট ৪১টি স্প্যানের মধ্যে চীন থেকে মাওয়ায় এসেছে ৩৩টি স্প্যান। আরও দুইটি স্প্যান চীন থেকে ডিসেম্বরের ২৬ তারিখে বাংলাদেশের পথে রওনা হয়েছে। এটি নদী পথে বাংলাদেশে পৌছাতে ২১ দিন লাগে। আশা করা যাচ্ছে আগামী ৩/৪ দিনের মধ্যে এ দুটি স্প্যান বাংলাদেশের মোংলা বন্দরে এসে পৌছাবে। সেখান থেকে মাওয়া এসে পৌছাতে আরও দু’তিন দিন লাগবে। বাকী ৬ টি স্প্যান চীনে তৈরী ও পাঠানোর প্রক্রিয়া চলমান আছে। মার্চের মধ্যে সব স্প্যান দেশে চলে আসবে। সেতুর ৪১টি স্প্যানের মধ্যে ২০টি স্প্যান স্থায়ীভাবে স্থাপন করা হয়েছে যার দৈর্ঘ্য তিন কিলোমিটার। এ সিডিউল মেনে স্প্যান বসাতে পারলে আগামী বছরের জুলাই নাগাদ ৪১টি স্প্যান বসানো শেষ হবে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শ্রীবরদীতে নির্যাতনে শিশু গৃহকর্মীর মৃত্যু ॥ গৃহকর্তাকে গ্রেফতারসহ দম্পতির ফাঁসি চান স্বজনরা

» ঝিনাইগাতীতে খেলার মাঠ দখল করে চাষাবাদ : ক্রীড়া কর্মকাণ্ড ব্যাহত

» চুলের জন্য সিনেমা থেকে বাদ পড়লেন বাপ্পী

» নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্ল্যান্ট কোম্পানিতে ৩৬৮ জনের নিয়োগ

» সমালোচনা নিত্যসঙ্গী মাহমুদউল্লাহর

» বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ২ ম্যাচের জন্য ব্রাজিল দল ঘোষণা

» ‘খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত শেখ হাসিনার মানবিকতায়, বিএনপির আন্দোলনে নয়’

» করোনা: মোবাইল ফোন জীবাণুমুক্ত রাখতে কী করবেন

» স্পিডবোট ডুবিতে নিখোঁজ ৫ জনেরই লাশ উদ্ধার

» ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই

» শেরপুরে ডা. অমি’র জন্মদিন উপলক্ষে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প ও খাবার বিতরণ

» শেখ হাসিনা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত করেছেন : কৃষিমন্ত্রী

» শ্রীবরদীতে গৃহকর্ত্রীর নির্যাতন ॥ ২৭ দিন পর মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো সেই শিশু গৃহকর্মী

» শেরপুরে জেলা মহিলা আ’লীগের সভানেত্রী শামছুন্নাহার কামাল করোনায় আক্রান্ত

» ঝিনাইগাতীতে কৃষকদের প্রযুক্তি হস্তান্তর প্রশিক্ষণ

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  দুপুর ১২:৪৯ | সোমবার | ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

অর্ধেকের বেশী দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতু

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : পদ্মা সেতুর ২১তম ¯প্যান স্থাপন হয়েছে। ১৪ জানুয়ারি মঙ্গলবার বিকেল ৩টা ৩ মিনিটের সময় ওই স্প্যান বসানো সম্পন্ন হয়। এর ফলে পদ্মাসেতু অর্ধেকের বেশী ৩১৫০ মিটার দৃশ্যমান হলো। বছরের প্রথম স্প্যান খুঁটিতে বসানোর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতু আরেক ধাপ এগিয়ে গেলো। ৬.১৫ মিটার দীর্ঘ এই মূল সেতুতে আর ২০টি স্প্যান বসানো বাকী। চলতি মাসে সেতুর আরও দু’টি স্প্যান উঠার কথা রয়েছে। সেতু বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের জানিয়েছেন, প্রতি সাসে এখন সেতুর তিনটি করে স্প্যান বসবে। এতে আগামী জুলাই মাসেই সব অর্থ্যাৎ ৪১টি স্প্যান বসানো সম্ভব হবে।
স্থায়ীভাবে সেতুতে ২১ স্প্যান বসেছে। তবে অস্থায়ী ভাবে আরও একটি অর্থ্যাৎ সেতুতে এখন ২২টি স্প্যান দৃশ্যমান। ‘৫এফ’ নম্বরের স্প্যানটি এখন অস্থায়ীভাবে সেতুর ১২ ও ১৩ নম্বর খুঁটিতে রাখা আছে। এটি সরিয়ে নেয়া হবে ৩০ ও ৩১ নম্বর খুঁটিতে। রেলওয়ে এবং রোডওয়ে স্লাব বসানোর সুবিধার্থে এটি সেখানে যথাস্থানে বসানো হয়নি। তবে শিঘ্রই এটিও ৩০ ও ৩১ নম্বর খুঁটিতে বসানো হবে।
পৌষের কনকনে শীতে পদ্মা ছিল কুয়াশাচ্ছন্ন। আবহাওয়াজনিত কারণে কিছুটা বিলম্ব হলেও এরই মধ্যে সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে জাজিরা প্রান্তে সেতুর ৩২ ও ৩৩ নম্বর খুঁটির ওপর ‘৬বি’ নম্বর স্প্যানটি পিলারের উপর বসানো হয়। মঙ্গলবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটের দিকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কুমারভোগ কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ¯প্যানটিকে নিয়ে যায় ‘তিয়ান ই’ ভাসমান ক্রেন। নির্ধারিত পিলারের কাছে পৌছায় সকাল ১১টার দিকে। ২০তম ¯প্যান বসানোর ১৪ দিনের মাথায় বসেছে ২১তম ¯প্যানটি।
পদ্মা সেতুর ৪২ টি খুঁটি (পিয়ার) মধ্যে কাজ শেষ হয়েছে ৩৬টি খুঁটির। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। এছাড়াও ২০ জানুয়ারি ‘১-ই’ নম্বর স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তের ৪ ও ৫ নম্বর খুটিতে এবং ৩০ জানুয়ারি ‘৬-এ’ নম্বর স্প্যানটি সেতুর জাজিরা প্রান্তের ৩১ ও ৩২ নম্বর খুঁটিতে বসানোর কথা রয়েছে।
সেতুর মোট ৪১টি স্প্যানের মধ্যে চীন থেকে মাওয়ায় এসেছে ৩৩টি স্প্যান। আরও দুইটি স্প্যান চীন থেকে ডিসেম্বরের ২৬ তারিখে বাংলাদেশের পথে রওনা হয়েছে। এটি নদী পথে বাংলাদেশে পৌছাতে ২১ দিন লাগে। আশা করা যাচ্ছে আগামী ৩/৪ দিনের মধ্যে এ দুটি স্প্যান বাংলাদেশের মোংলা বন্দরে এসে পৌছাবে। সেখান থেকে মাওয়া এসে পৌছাতে আরও দু’তিন দিন লাগবে। বাকী ৬ টি স্প্যান চীনে তৈরী ও পাঠানোর প্রক্রিয়া চলমান আছে। মার্চের মধ্যে সব স্প্যান দেশে চলে আসবে। সেতুর ৪১টি স্প্যানের মধ্যে ২০টি স্প্যান স্থায়ীভাবে স্থাপন করা হয়েছে যার দৈর্ঘ্য তিন কিলোমিটার। এ সিডিউল মেনে স্প্যান বসাতে পারলে আগামী বছরের জুলাই নাগাদ ৪১টি স্প্যান বসানো শেষ হবে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!