প্রকাশকাল: 7 সেপ্টেম্বর, 2015

হুমকির মুখে বিজিবি ক্যাম্প : ডিমলায় তিস্তার ভয়াবহ ভাঙ্গন

tista-07.09.15নীলফামারী প্রতিনিধি : তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার নিচে নেমে আসায় ব্যাপক ভাঙ্গন শুরু করেছে। শনিবার রাতে তিস্তার ভাঙ্গনে চরখড়িবাড়ী মৌজার কাইয়ুমের বাড়ী সংলগ্ন রাস্তার ৫ শ মিটার নদী গর্ভে বিলিন হওয়ায় চরখড়িবাড়ী ১ হাজার ৮শ পরিবারে নতুন করে বন্যার পানি প্রবেশ ও ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ার ফলে চরখড়িবাড়ী বিজিবি ক্যাম্পের ভিতরে বন্যার পানি প্রবেশ করে হাটু পানিতে তলিয়ে রয়েছে। যে কোন সময় বিজিবির ক্যাম্পটি বিলিন হওয়ার পাশাপাশি চরখড়িবাড়ী গ্রামের ১ হাজার ৮শ পরিবার হুমকির মুখে পড়ছে। সোমবার দুপুরে বন্যা কবলিত ভাঙ্গনে বিলিন হয়ে যাওয়ার আশঙ্খায় বিজিবি ক্যাম্পটি পরিদর্শন করেন বর্ডার গার্ড ৭ ব্যাটলিয়ানের উপ অধিনায়ক আবু নায়েম মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। এলাকাবাসী স্থানীয় প্রশাসন সহ এলাকার সংসদ সদস্যের নিকট জরুরী ভিত্তিতে রাস্তাটি মেরামতের দাবী করেছে।
রাস্তাটির বিলিন হওয়ার চরখড়িবাড়ী মৌজার কয়েশ শত বিঘা জমির আমন ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। এলাকার ৫ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১ টি উচ্চ বিদ্যালয়ে বন্যার পানি ও ভঙ্গনের কবলে পড়ায় শিক্ষা কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। ১ টি কমিউনিটি কিনিক পানিতে তলিয়ে গিয়ে ভাঙ্গনের আশঙ্খায় চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হচ্ছে।
সোমবার সকালে তিস্তার পানি বিপদসীমার (৫২দশমিক ৪০) ১০ সেন্টিমিটার নিচে নেমে আসার সাথে সাথে ভাঙ্গন তিব্র আকার ধারন করেছে। ভাঙ্গনের ফলে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাঁপানী ইউনিয়নের ভেন্ডাবাড়ি, ছাতুনামা, ফরেষ্ট ও টেপাখাড়বাড়ী ইউনিয়নের চর খড়িবাড়ীর গ্রামে ব্যাপক ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। তিস্তা নদীর ধারে স্বপন বাধের সংস্কারকৃত সিডিএমপির মাটির বাধটি চরম হুমকির মুখে পড়েছে। ইতিমধ্যে বাধটির ৩ শত মিটার তিস্তার নদীতে বিলিন হয়েছে।
টেপাখড়িবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম শাহিন বলেন, চরখড়িবাড়ীতে মাটির রাস্তাটি বিলিন হওয়ার কারনে বিজিবি ক্যাম্পটি হুমকির মুখে পড়েছে। চরখড়িবাড়ী বিজিবি ক্যাম্পের ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার আব্দুল মাজেদ জানায়, বিজিবি ক্যাম্পটির ভিতরে রবিবার সকাল থেকে হাটু পানিতে তলিয়ে রয়েছে। ক্যাম্পের ৩শ ফিট কাছাকাছি তিস্তার মুল নদী ও ৩ মিটার পাশ দিয়ে বন্যার পানি প্রবল ¯্রােতের বেগে চলতে থাকায় যেকোন সময় নদীর ভাঙ্গনে ক্যাম্পটি বিলিন হওয়ার আশু সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!