শতবর্ষী শহীদ জননী জ্যোতি রাণী পেলেন হুইল চেয়ার

স্টাফ রিপোটার ॥ দৈনিক জনকণ্ঠে খবর প্রকাশের পর শেরপুরের একাত্তরের ভয়াল স্মৃতি হয়ে থাকা ‘জগৎপুর’ এর চলৎশক্তি হারা সেই শতবর্ষী শহীদ জননী জ্যোতি রাণীর ভাগ্যে জুটেছে এবার হুইল চেয়ার। ৯ মে বুধবার সকালে ঝিনাইগাতী উপজেলার প্রত্যন্ত পল্লী জগৎপুরে গিয়ে জ্যোতি রাণীকে সদ্য কেনা হুইল চেয়ারে বসিয়ে দিয়ে এসেছেন জেলা মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ও মুক্তিসংগ্রাম জাদুঘরের শেরপুর ইউনিটের আহবায়ক রাজিয়া সামাদ ডালিয়া। ওইসময় তার সাথে ছিলেন মানবাধিকার কর্মী শামীম হোসেন ও সোহেল রানা।
জানা যায়, একাত্তরের ৩০ এপ্রিল ঝিনাইগাতী উপজেলার নিভৃত ছায়া-সুনিবির ওই প্রত্যন্ত পল্লী জগৎপুরে অতর্কিতে হামলে পড়ে পাকহানাদার বাহিনী ও তাদের দোসররা। তাদের নির্বিচারে চালানো গুলিতে সেদিন শহীদ হন ৩৫ গ্রামবাসীসহ ওই গ্রামে আশ্রয় নেওয়া শতাধিক নিরীহ মানুষ। একইসাথে আহত হয় আরও অর্ধশতাধিক মানুষ। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় জগৎপুর গ্রাম। এতে ২শ’রও বেশি বাড়ি-ঘর পুড়ে ভষ্ম হয়। ওইদিন সকালে রাধা ভাত খাবার আগেই হতরিদ্র জ্যোতি রাণী দে ও স্বামী তরুণী কান্তি দে’র সামনেই গুলি করে হত্যা করে পুত্র অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ভজন চন্দ্র দে (১৪) কে। অন্যদের মতো ভজনেরও ঠাঁই হয় গণকবরে। বয়সের ভারে নূব্জ হওয়া শহীদ জননী জ্যোতি রাণীর দিনমানের অবস্থা এখন একেবারেই নাজুক। ভিটেবাড়ি ছাড়া সহায়-সম্বল না থাকা পুত্রের সংসারে থেকে কোনোমতন খাওন-দাওন জুটলেও চলাফেরায় তার দারুণ কষ্ট হচ্ছিল। এ নিয়ে দৈনিক জনকণ্ঠে একটি সরেজমিন প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে আবারও তার পাশে গিয়ে দাঁড়ায় মুক্তিসংগ্রাম জাদুঘর। তবে জ্যোতি রাণীর ভাগ্যে এখনও জুটেনি একটি বয়স্ক ভাতার কার্ড। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তার বয়স্ক ভাতার কার্ড দিতে পদক্ষেপ নিয়েছেনÑ এমনটি বললেও সে আশ্বাসে সান্তনা মিলছে না কারোরই। অন্যদিকে ওই বিষয়ে এখনও দৃষ্টি আকর্ষণ করা যায়নি স্থানীয় প্রশাসনের।
জীবনের শেষ প্রান্তে এসে অন্যদের সহায়তা ছাড়া যখন এক হাতে লাঠি, অন্যহাতে কাঠের ক্র্যাচ নিয়ে চলাফেরাও ছিল দুরূহ, ঠিক তখন একটি হুইল চেয়ার পেয়ে শতবর্ষী জ্যোতি রাণী বেজায় খুশি। ওইসময় নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে তিনি জগৎপুরে শহীদদের স্মৃতিরক্ষায় স্মৃতিসৌধ নির্মাণসহ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করায় রাজিয়া সামাদ ডালিয়াসহ অন্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সেইসাথে তিনি ‘শেখের বেটি হাসিনা’র প্রতি জগৎপুর গণহত্যায় শহীদদের স্বীকৃতিসহ বধ্যভূমি সংরক্ষণে দাবি জানান।
এ ব্যাপারে বিশিষ্ট সমাজসেবী রাজিয়া সামাদ ডালিয়া বলেন, মুক্তিসংগ্রাম জাদুঘরের উদ্যোগে শতবর্ষী শহীদ জননী জ্যোতি রাণীকে একটি হুইল চেয়ার দেওয়া সম্ভব হলেও এখনও তার বয়স্ক ভাতা কার্ডের ব্যবস্থা করা যায়নি। বিষয়টির প্রতি প্রশাসন একটু নজর দিলেই তার সমাধান হওয়া খুব কঠিন নয়।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

অবাধে মাছ নিধন অমানবিক নির্যাতনে শিশুর মৃত্যু আত্মহত্যা আহত ইয়াবা উদ্ধার উড়াল সড়ক খুন গাছে বেঁধে নির্যাতন গাছের চারা বিতরণ ঘূর্ণিঝড় 'কোমেন' চাঁদা না পেয়ে স্কুলে হামলা ছিটমহল জাতির জনকের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জাতীয় শোক দিবস জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার সূচি প্রকাশ ঝিনাইগাতী টেস্ট ড্র ড. গোলাম রহমান রতন পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিহত প্রত্যেক বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রধানমন্ত্রী বন্যহাতির তান্ডব বন্যহাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে নিহত বাল্যবিয়ের হার ভেঙে গেছে ব্রিজ মতিয়া চৌধুরী মাদারীপুর মির্জা ফখরুলের মেডিকেল রিপোর্ট রিমান্ডে লাশ উদ্ধার শাবলের আঘাতে শিশু খুন শাহ আলম বাবুল শিশু রাহাত হত্যা শেরপুর শেরপুরে অপহরণ শেরপুরে বন্যা শেরপুরের নবাগত জেলা প্রশাসক শ্যামলবাংলা২৪ডটকম’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সংঘর্ষে নিহত ৫ সোমেশ্বরী নদীর বেড়িবাঁধে ভাঙ্গন স্কুলছাত্র রাহাত হত্যা স্কুলছাত্রী অপহরণ হাতি বন্ধু কর্মশালা হুমকি ২ স্কুলছাত্রী হত্যা
error: Content is protected !!